রাজ্য সরকারি প্রকল্প ব্যবসা প্রযুক্তি টেলিকম চাকরির খবর অর্থনীতি স্কলারশিপ
Advertisements

এ কি কান্ড! ফুলসজ্জার রাতে বরের চিৎকার! পুরো ঘটনা চমকে দেবে

Viral News: ফুলসজ্জার রাতেই বরকে মারধর কনের! উপায় না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ বর। সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় চোখ রাখলে প্রতিদিন হাজারও একটা ঘটনা চোখের সম্মুখে ভেসে ওঠে। আজকালযুগে ভালো খবরের চেয়ে…

Viral News: ফুলসজ্জার রাতেই বরকে মারধর কনের! উপায় না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ বর। সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় চোখ রাখলে প্রতিদিন হাজারও একটা ঘটনা চোখের সম্মুখে ভেসে ওঠে। আজকালযুগে ভালো খবরের চেয়ে খারাপ খবরেই যেন চারিদিক ছেয়ে থাকে। সম্প্রতি তেমনই একটি খবর উঠে এল সংবাদের শিরোনামে। বিয়ে বিষয়টি খুবই পবিত্র একটি বিষয়। বর-কনে (Bor-Kone) সহ দুই পরিবারের আন্তরিকতায় দুটি মানুষ নতুন জীবনের উদ্যেশে পথ চলতে শুরু করে।

Viral News

তবে, আজকালকার যুগে যত তাড়াতাড়ি দুটি মানুষ সম্পর্কে লিপ্ত হয় ঠিক তত তাড়াতাড়ি বা তার আগেই সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে যায়। আর তারই জ্বলজ্যান্ত উদাহরণ হল এই ঘটনাটি। এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরাখন্ডের হরিদ্বারের মাধবপুরের গঙ্গানাহার এলাকায়। ওই গ্রামের এক ছেলের সঙ্গে থিথোলা এলাকার এক মেয়ের বিয়ে হয়। যথারীতি বিয়ের পর বরপক্ষ কনেকে তাদের বাড়িতে নিয়ে আসে। এরপর সব অনুষ্ঠান শেষ করে বর-কনে (Bor-Kone) তাদের ঘরে চলে যায়। আর তারপরই ঘটে বিপত্তি।

Short Film
স্বামীসুখ না পেয়ে চরম সিদ্ধান্ত গৃহবধূর, কানে হেডফোন দিয়ে দেখুন

কিন্তু কি ঘটে তাই ভাবছেন নিশ্চই? আসলে বন্ধ ঘর থেকে বরের আর্তনাদ শুনতে পায় পরিবারের লোকজন। রীতিমতো বর (Bor) চিৎকার করতে থাকে। আর তারপরই তাকে বাঁচানোর জন্য ছুটে আসে সবাই। আর এসে দেখেন যে, কনে বরকে মারছে। কিন্তু কেন মারছে তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বর জানিয়েছেন যে, কনে মানসিকভাবে অসুস্থ। যদিও নববধূর দাবি যে, বিছানায় স্পর্শ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝামেলা বাঁধে। আর তারপর তাকে নাকি ঘর থেকে বের করে দেওয়া হয়। আর যার কারণেই এই ঘটনার সূত্রপাত।

Viral News

পুলিশের মতামত (Police opinion)

এই ঘটনাটি ঘটা মাত্রই বরপক্ষ থেকে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যথারীতি পুরো ঘটনাটি বিচার বিশ্লেষণ করে ইন্সপেক্টর অমরজিৎ সিং দুজনের তরফ থেকেই বিষয়টি মিটিয়ে একটি সমঝোতায় আসতে বলেছেন।

কিন্তু বর সেক্ষেত্রে কোনো সমঝোতায় রাজি নয়। তার দাবি কনে মানসিক ভারসাম্যহীন এমনকি বিয়ের রাতে তাকে মারধোরও করেছে। আর তাই সে এই স্ত্রীয়ের সঙ্গে থাকতে কোনোভাবেই রাজি নয়। আগামী দিনে কোনদিকে মোড় নেবে এই বর-কনের (Bor-Kone) সম্পর্ক তা বলবে সময়।