রাজ্য সরকারি প্রকল্প ব্যবসা প্রযুক্তি টেলিকম চাকরির খবর অর্থনীতি স্কলারশিপ
Advertisements

ইন্টারভিউতে চাকরি কেড়ে নেয় এই ৫ ভুল

Interview Mistakes: চাকরির ইন্টারভিউয়ের কথা ভাবলেই বুক দুরুদুরু করে ওঠে। একটা ভুল এবং চাকরির সুযোগ হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে। চাকরির ইন্টারভিউতে কেমন আচরণ করা উচিত? কীভাবে প্রশ্নের উত্তর দেওয়া উচিত?…

Interview Mistakes: চাকরির ইন্টারভিউয়ের কথা ভাবলেই বুক দুরুদুরু করে ওঠে। একটা ভুল এবং চাকরির সুযোগ হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে। চাকরির ইন্টারভিউতে কেমন আচরণ করা উচিত? কীভাবে প্রশ্নের উত্তর দেওয়া উচিত? কোম্পানি কোন গুণ দেখে চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে? সেই বিষয়েই গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিলেন গুগল ও ডোরড্যাশের প্রাক্তন নিয়োগকর্তা নোলান চার্চ। চলুন জেনে নেওয়া যাক, তিনি কী কী বললেন।

Interview Mistakes

চাকরিপ্রার্থীদের সবচেয়ে বড়ো ভুল (Biggest Interview Mistakes)

প্রথমেই জানাই, একটা ইন্টারভিউয়ে যিনি বা যাঁরা ইন্টারভিউ নেন, তাঁদের বলা হয় ‘ইন্টারভিউয়ার’ (interviewer) এবং যে ইন্টারভিউ দেন তিনি হলেন ‘ইন্টারভিউয়ি’ (interviewee)। এবার, আশা যাক নোলান চার্চের কথায়। কী করা উচিত এবং কী করা উচিত নয়, এই সব বিষয়েই বলেছেন তিনি।

১. সিভি/লিংকডইন প্রোফাইল: নোলান প্রথমেই বলেন যে, চাকরিপ্রার্থীদের নিজের প্রোমোশনের ব্যাপারে লিঙ্কডইন ইন প্রোফাইলে না লেখার সিদ্ধান্ত একদমই ভুল। সর্বদাই নিজেদের যোগ্যতা ও কর্মক্ষমতার ব্যাপারে লিংকডইনে আপডেট দেওয়া উচিত। এমনটা করলে নিয়োগ কর্তাদের মনে ইন্টারভিউয়িয়ের ব্যাপারে আর কোনো সংশয় থাকে না। সিভিতে অভিজ্ঞতা ও কর্মদক্ষতা নিয়ে লেখা তো তিনি বাধ্যতামূলক বলে মনে করেন।

Nikon Scholarship 2023

২. হোমওয়ার্ক: নোলানের কথায় চাকরিপ্রার্থীদের কোম্পানি ও পদ সম্পর্কে হোমওয়ার্ক না করার সিদ্ধান্ত দেখে অসন্তুষ্ট হয়ে থাকেন নিয়োগ কর্তারা। তিনি সর্বদাই চাকরিপ্রার্থীদেরকে কোম্পানি ও তাঁর নিজের ভূমিকা সম্পর্কে হোমওয়ার্ক করার পরামর্শ দেন। কেউ যখন এই প্রস্তুতি নেন না, তখনই ইন্টারভিউয়াররা সংশ্লিষ্ট ইন্টারভিউয়িকে ‘রেড ফ্ল্যাগ’ হিসাবে চিহ্নিত করেন। এর মাধ্যমে মূলত কোম্পানি ইন্টারভিউয়ির কাজ করার আগ্রহের গভীরতা মেপে নেন।

Interview Mistakes

৩. অপ্রয়োজনীয় জিনিস উগলে দেওয়া (Interview Mistakes): অনেকেই অভ্যাস করা বিষয় ইন্টারভিউয়ে প্রয়োজন না থাকলেও বলতে শুরু করেন। নোলানের ভাষায়, সেটা করা উচিত নয়। যতটুকু জিজ্ঞাসা করা হয়েছে, ততটুকুই বলা উচিত। কেউ কাজের পরিমাণের হিসাব দিলেও আবার দক্ষতার ব্যাপরে বলেন না। যাঁর ফলে অনেক সময়েই ইন্টারভিউয়াররা অসন্তুষ্ট হয়ে পড়েন।

৪. কাজের প্রমাণ (Interview Mistakes): সম্ভব হলে ইন্টারভিউয়িকে নিজের কাজের অর্থপূর্ণ প্রমাণ নিজের সঙ্গে রাখতে হবে ও দেখাতে হবে। এতে ইন্টারভিউয়ির দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা সম্পর্কে ইন্টারভিউয়ারের কাছে একটা স্পষ্ট ধারণা তৈরি হয়। একইসঙ্গে কাজের শেখার প্রতি আগ্রহ দেখেও ইন্টারভিউয়ি অগ্রাধিকার পেয়ে থাকেন।

৫. অভিজ্ঞতা, মানসিকতা ও আচরণ (Interview Mistakes): প্রার্থীর সবচেয়ে বড়ো গুণ হল নিজেকে শিক্ষার্থী হিসাবে মনে করা। বিনম্র স্বভাবে বৃদ্ধির মানসিকতা তাঁদের মুখমণ্ডলে প্রকাশ পাওয়া উচিত। নিজের পূর্ব অভিজ্ঞতা, বর্তমানে তাঁর দক্ষতা ও কাজ সম্পর্কে দূরদর্শিতা এই সব বিষয়ই চাকরিপ্রার্থীর উচিত একটা ফ্রেমে বন্দি করা। কোনো ইন্টারভিউয়ি এই কাজটি করলেই পারলেই তাঁর ইন্টারভিউ ক্র্যাক করার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।